যমুনা ফিউচার পার্কে বৈশাখীর নজরকাড়া পোশাক

বিশ্বের অন্যতম বৃহৎ এবং এশিয়ার সর্ববৃহৎ শপিংমল যমুনা ফিউচার পার্কে পাওয়া যাচ্ছে বৈশাখের নজরকাড়া ডিজাইনের বাহারি ধরনের পোশাক। পহেলা বৈশাখকে সামনে রেখে ক্রেতাদের দৃষ্টি আকর্ষণে বিক্রেতারা আধুনিক সব পোশাকের পাশাপাশি নতুন ডিজাইনের বৈশাখী পোশাকে সেজেছে যমুনার বিপণিবিতান।

প্রতিদিনই ক্রেতা-দর্শনার্থীর ভিড় বাড়ছে। ক্রেতাদের প্রত্যাশা অনুযায়ী বেচাবিক্রি এখনো জমে উঠেনি। তবে বিক্রি বাড়ার প্রত্যাশা বিক্রেতাদের।

মঙ্গলবার যমুনা ফিউচার পার্ক ঘুরে দেখা যায়, বৈশাখের রংমাখা নতুন পোশাকে সেজেছে নবরুপা, অঞ্জন’স, আড়ং, আড়ংসহ বিভিন্ন ফ্যাশন হাউস। প্রতিটি ফ্যাশন হাউস তাদের পাশাকের ডিজাইনে এনছে ভিন্নতা। এছাড়া বেশির ভাগ পোশাকে ব্যবহার করা হয়েছে সাদা, লাল, হলুদও সবুজ রং। তবে নবরুপায় রয়েছে ভিন্ন কালেকশন। নবরুপা এবার বৈশাখে নিয়ে এসেছে ফ্যামিলি প্যাকেজ। এছাড়া অন্যসব ফ্যাশন হাউসগুলোও সব বয়সীদের কথা মাথায় রেখে এসেছে বাহারি পোশাক।

এছাড়া মার্কেটে ক্রেতাদের আনাগোনা বেড়েছে। মলের ভেতর-বাহির মুখর হয়ে ওঠে নানা বয়সের নারী-পুরুষ-শিশুর পদচারণায়। এখানকার সব কটি ফ্যাশন হাউস রঙিন হয়ে উঠেছে নানা রঙের বৈশাখী পোশাকে। বিভিন্ন ফ্যাশন হাউসগুলোতে পাওয়া যাচ্ছে শাড়ি, সেলোয়ার কামিজ, পাঞ্জাবি, ফতুয়া, ট্রি-শার্টসহ বিভিন্ন ধরনের পোশাক।

নবরুপার ম্যানেজার সাদ্দাম হুসাইন বলেন, নবরুপা নিয়ে এসেছে ফ্যামিলি প্যাকেজ। এছাড়া অন্য ফ্যাশন হাউস থেকে নবরুপায় পোশাকের দামও অনেক কম। নবরুপায় পাবেন নারীদের জন্য শাড়ি, পুরুষদের জন্য পাঞ্জাবি ও শিশুদের জন্য নতুন ডিজাইনের ধরনের পোশাক।

নবরুপায় শাড়ি কিনছিলেন জেসমিন পারভীন। তিনি বলেন, বৈশাখের পোশাক কিনতে নবরুপায় আসা। নবরুপায় ঢুকেই দেখলাম ফ্যামিলি প্যাকেজের নজড়কাড়া ডিজাইনের পোশাক। তাই ভাবছি এক ছাদের নিচে থেকে কেনাকাটা শেষ করব।

দাম কেমন জানতে চাইলে ওই নারী জানান, দাম নাগালের মধ্যেই আছে। তবে বৈশাখের জন্য কোনো ছাড় দেয়া হয়নি।

রং থ্রিপিস কিনতে আসা নূর নাহার বেগম জানান, নিজের জন্য শাড়ি কিনব। রঙের শাড়ি বরাবরই একটু ভিন্ন ধরনের্। এছাড়া বাচ্চাদের পোশাকও কিনব। দরজায় কড়া নাড়ছে বাঙালির প্রাণের উৎসব পহেলা বৈশাখ। প্রতি বছর বাঙালিরা এভাবেই উৎসবে নেচে-গেয়ে নতুন বছরকে বরণ করে নেয়। এ উৎসবে থাকে না কোনো ধর্ম-বর্ণের ভেদ। সব ধর্মের সব মানুষই এ দিন উৎসবে মেতে উঠে। তাই সেই সঙ্গে তাল মিলিয়ে সেজে উঠে ফ্যাশন হাউসগুলো।

লাইক দিয়ে শেয়ার করুন:
0

Post Your Comment Here

Your email address will not be published. Required fields are marked *